দেশের খ্যাতিমান কন্ঠশিল্পি এন্ড্রু কিশোরের অবস্থা সংকটাপন্ন

সান মিশন ডেস্ক : দূরারোগ্য ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোরের শারীরিক অবস্থার ভীষণ অবনতি ঘটেছে। জন্মস্থান রাজশাহী মহানগরীর মহিষবাথান এলাকায় বোন ডা. শিখা বিশ্বাসের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা চলছে তার। রবিবার (৫ জুলাই) বিকালে এন্ড্রু কিশোরকে দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা শফিকুল আলম বাবু জানান, দেশে ফিরলেও এন্ড্রু কিশোরের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। রবিবার সকাল থেকে তার শারীরিক অবস্থার খুব অবনতি ঘটেছে। কারও সঙ্গে কথা বলার মতো অবস্থাতেও তিনি নেই। এন্ড্রু কিশোরের জন্য তিনি সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

এদিকে এরই মধ্যে ফেসবুকে এন্ড্রু কিশোরের মৃত্যু গুজব ছড়িয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় এই কণ্ঠশিল্পীর পারিবারিক চিকিৎসক জানিয়েছেন, এন্ড্রু কিশোর বেঁচে আছেন তবে তার অবস্থা শারীরিক অবস্থা ক্ষণে ক্ষণে খারাপের দিকে যাচ্ছে। তিনি খুবই কষ্ট পাচ্ছেন। সৃষ্টিকর্তার কাছে তার জন্য দোয়া করবেন সবাই। দেশবাসীর কাছে অনুরোধ এমন গুজব ছড়াবেন না যা তার পরিবারের ওপর মানসিক চাপ বাড়িয়ে দেয়।

গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে দেশ ছেড়েছিলেন এন্ড্রু কিশোর। সেখানে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক লিম সুন থাইয়ের অধীনে চিকিৎসা শেষে কিছুদিন আগে দেশে ফেরেন তিনি। এর পর থেকে জন্মস্থান রাজশাহীতে বোনের বাসাতেই অবস্থান করছেন এই আটবারের চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া এই সঙ্গীতশিল্পী।

১৯৭৭ সালে আলম খানের সুরে ‘মেইল ট্রেন’ চলচ্চিত্রে ‘অচিনপুরের রাজকুমারী নেই যে তাঁর কেউ’ গানের মধ্য দিয়ে এন্ড্রু কিশোরের চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক যাত্রা শুরু হয়।

ঢাকাই ছবিতে তার জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে ‘জীবনের গল্প আছে বাকি অল্প’, ‘হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস’, ‘ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে’, ‘আমার সারা দেহ খেয়ো গো মাটি’, ‘আমার বুকের মধ্যে খানে’, ‘আমার বাবার মুখে প্রথম যেদিন শুনেছিলাম গান’, ‘ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা’, ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’, ‘পড়ে না চোখের পলক’, ‘পদ্মপাতার পানি’, ‘ওগো বিদেশিনী’, ‘তুমি মোর জীবনের ভাবনা’, ‘আমি চিরকাল প্রেমের কাঙাল’ প্রভৃতি।

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন

Back to top button