স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য সবাইকে করোনার টিকা গ্রহণের আহবান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক : করোনা টিকার ব্যাপারে কোন ধরণের সন্দেহ পোষণ না করে স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য সবাইকে এই টিকা গ্রহণের আহবান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর এলাকায় করোনা ডেডিকেটেড ৩০০ শয্যা হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে এ আহ্বান করেন তিনি। এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী টিকার ব্যাপারে কোন ধরণের বিভ্রান্ত সৃষ্টি না করে গণমাধ্যম কর্মীদেরও এই টিকা গ্রহণ করে সাধারণ মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, এই টিকা সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং কোন ধরণের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। টিকার ব্যপারে সাধারণ মানুষের মধ্যে অনেক সচেতনতা এসেছে। প্রতিদিন অন্তত দুই লাখ মানুষ টিকা গ্রহণ করছেন। এই টিকার মাধ্যমেই বাংলাদেশ করোনমুক্ত হবে বলে মন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
 
স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পরিদর্শনকালে আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় দুই সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান, শামীম ওসমান, স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের সচিব আবদুল মান্নান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপচিালক খুরশীদ আলম, নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম, জেলা সভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ ও ৩০০ শয্যা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল বাশারসহ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা।

এ সময় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান শহরের পুরান কোর্ট এলাকায় জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের জন্য নির্মানের পর তিন বছর যাবত পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা ভবনটিকে হার্ট চিকিত্সার জন্য একটি আধুনিক হাসপাতাল করার দাবি জানান।

বিষয়টি গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক জানান, যেহেতু ভবনটি আইন মন্ত্রনালয়ের অধিনে রয়েছে, তাই এ ব্যাপারে যথাশীঘ্র এই মন্ত্রনালয়ের সাথে আলাপ আলোচনা করা হবে। আইন মন্ত্রনালয় তাদের পরিত্যক্ত ভবনটিকে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়কে হস্তান্তর করতে সম্মত হলে সেখানে দ্রুত হার্ট চিকিত্সার হাসপাতাল করা হবে বলে সবাইকে আশ্বস্থ করেন।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী নারায়ণগঞ্জে কুমুদিনি ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্স এন্ড ক্যান্সার রিসার্চ কিমস কেয়ার হাসপাতালটির ভিত্তিপ্রস্তর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উন্মোচন অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান, একেএম শামীম ওসমান, নজরুল ইসলাম বাবু, লিয়াকত হোসেন খোকা, নাসিক মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী, স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের সচিব আবদুল মান্নান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপচিালক খুরশীদ আলম, নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম, জেলা সভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ ও ৩০০ শয্যা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল বাশারসহ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা।                                

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন

Back to top button