৭০ দিন পর কর্মচাঞ্চল্য ফিরেছে সোনামসজিদ স্থলবন্দরে

৭০ দিন পর চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থলবন্দরে ফের আমদানি-রফতানি শুরু হয়েছে।

সোনামসজিদ ও মহদীপুর স্থলবন্দর আমদানি-রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশন এবং উভয় দেশের জেলা প্রশাসনের আলাপ-আলোচনার পর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কর্মচাঞ্চল্য ফিরেছে স্থলবন্দরে।

সোনামসজিদ আমদানি-রফতানি গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক তোফিকুর রহমান বাবু মোবাইল ফোনে জানান, করোনার কারণে দীর্ঘ দুই মাস ১০ দিন (৭০ দিন) বন্ধ থাকার পর সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে উভয় দেশের আমদানি-রফতানি কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত ভারতের মহদীপুর স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি চলবে। বন্দর থেকে পণ্যভর্তি ট্রাক প্রবেশের সময় উভয় দেশের স্বাস্থ্য বিভাগ চালক ও হেলপারদের স্ক্যানিং করার পর পানামা ইয়াডের ভেতরে পণ্যভর্তি ট্রাক প্রবেশ করবে।

গত বুধবার সকালে জেলা প্রশাসক এজেডএম নুরুল হক, পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব, সিভিল সার্জন ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরী ও শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শিমুল আক্তার, শিবগঞ্জ থানার ওসি শামসুল আলম শাহ, সোনামসজিদ কাস্টমসের সহকারী কমিশনার সাইফুর রহমান ও আমদানি-রফতানি গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক তোফিকুর রহমান বাবু, সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক হারুন-অর-রশীদ, পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের পোর্ট ডেপটি ম্যানেজার মাঈনুল ইসলাম আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন।

প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক বৃহস্পতিবার থেকে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম শুরু হয় সকাল সাড়ে ১০টায় বলে কাস্টমসের সহকারী কমিশনার সাইফুর রহমান জানান।

উপরাজস্ব কর্মকর্তা বুলবুল চৌধুরী জানান, বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ১২টি পণ্যভর্তি ভারতীয় ট্রাক সোনামসজিদ স্থলবন্দরে প্রবেশ করেছে।

পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের পোর্ট ম্যানেজার বেলাল হোসেন জানান, সোনামসজিদ স্থলবন্দরে জিরো পয়েন্টে ভারতীয় ট্রাক ও হেলপারদের জীবাণুমুক্ত করার জন্য তিনটি স্থানে বসানো হয়েছে জীবাণু নিষ্ক্রীকরণ চেম্বার, ট্রাক স্প্রে করার জন্য মোতায়েন করা হয়েছে তিনটি টিম, ট্রাকচালক ও হেলপারদের শারীরিক তাপমাত্রা পরীক্ষার জন্য দুটি মেডিকেল টিম বন্দর চলাকালীন দায়িত্ব পালন করবেন।

এ ছাড়া পানামার ১নং গেটে ও ইয়াডের ভেতরে ভারতীয় চালকদের হাত-মুখ পরিষ্কার করার জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সাবান রাখা হয়েছে। এসব পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ভারতীয় ট্রাক পানামার ভেতরে মাল আনলোড করতে পারবে।

ভারতীয় ট্রাকচালক ও হেলপার ট্রাকের ভেতর থেকে নামতে পারবে না। এ ছাড়া বিকাল ৫টার মধ্যে ভারতীয় ট্রাকচালক ও হেলপার মহদীপুর স্থলবন্দরে প্রবেশ করতে হবে।

এদিকে সোনামসজিদ বন্দর পরিচালনাকারী পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের পোর্ট ডেপটি ম্যানেজার মাঈনুল ইসলাম বলেন, আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে বন্দর চালুর জন্য গত ১৫ এপ্রিল থেকেই প্রস্তুত ছিলাম। তবে ৩১ মে ভারতীয় রফতানিকারক অ্যাসেসিয়েশনের এক বার্তার পরিপ্রেক্ষিতে উভয় দেশের সরকারি কর্মকর্তাদের আলোচনাসাপেক্ষে বন্দরের কার্যক্রম চালু হয়।

আবার কর্মচঞ্চল হয়ে উঠবে গোটা বন্দর এলাকা, ঘুঁচবে হাজার হাজার শ্রমিকের বেকারত্ব, চাঙ্গা হয়ে উঠবে জেলার তথা দেশের অর্থনীতি। তবে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ২৫ মার্চ থেকে করোনাভাইরাসের কারণে উভয় দেশের স্থলবন্দরের আমদানি-রফতানি কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন

Back to top button